আইপিএলের ৩ ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিক যারা অধিনায়ককে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়ে থাকেন

আইপিএলের প্রায় সমস্ত ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকরা তাদের দলের সাথে বিভিন্ন সম্পর্কিত এবং প্রতিটি সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ করে থাকেন। তবে অন্যদিকে কয়েকটি দলের মালিক রয়েছেন যারা কেবল খেলোয়াড় কেনার বিষয়ে ছাড়া অন্য কোন বিষয়ে হস্তক্ষেপ করে না। তারা সমস্ত সিদ্ধান্তগুলি দলের অধিনায়কের উপর ছেড়ে দেন। এই প্রতিবেদনের সেই ৩টি ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিকের বিষয়ে বিস্তারিত রইল:

১) চেন্নাই সুপার কিংস:

এই তালিকায় প্রথমেই রাখা হয়েছে চেন্নাই সুপার কিংসের মালিক এন শ্রীনিবাসনকে। তার দলের অধিনায়ক হলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি এবং তার নেতৃত্বে দলটি চার বারের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এন শ্রীনিবাসন শুধুমাত্র আইপিএল নিলামের সময় হস্তক্ষেপ করে থাকেন। অন্য কোন বিষয়ে তিনি আর হস্তক্ষেপ করেন না।

এমনকি আইপিএল টুর্নামেন্ট চলাকালীন একাদশে কে খেলবেন আর কে বেঞ্চে বসবেন সেটাও অধিনায়ক ধোনিই ঠিক করেন। অন্যদিকে পাঞ্জাব কিংসের মত দলগুলির কথা বলতে গেলে এই ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিক অভিনেত্রী প্রীতি জিনতাকে প্রতিটি সিদ্ধান্তে হস্তক্ষেপ করতে দেখা যায় ও দলের খেলোয়াড়দের সাথে প্রায় মনোমালিন্য হয়।

২) কলকাতা নাইট রাইডার্স:

এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন কলকাতা নাইট রাইডার্স এর মালিক শাহরুখ খান। বলিউডের এই কিং খানও দল সংক্রান্ত বিষয়ে খুব একটা হস্তক্ষেপ করেন না।

আইপিএলের ১৪ বছরের মধ্যে কেকেআর দল দুই বার গৌতম গম্ভীরের নেতৃত্বে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। নাইটদের মালিক কেবল নিলামের সময় খেলোয়াড় কেনার বিষয়ে ছাড়া অন্য বিষয়গুলিতে অধিনায়ককে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়ে থাকেন। এছাড়াও একাদশে কারা থাকবেন আর কারা বাদ যাবেন সে বিষয়েও হস্তক্ষেপ করেন না।

৩) রয়েল চ্যালেঞ্জার বেঙ্গালুরু:

রয়েল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বর্তমান মালিক হলেন অরবিন্দ কৃপালু। যদিও এই দলটির আগে মালিক ছিলেন বিজয় মাল্য। ঋণের দায়ে তার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ আনা হলে তিনি দেশ ছেড়ে বিদেশে পালিয়ে গেছেন।

তবে এখনও পর্যন্ত আরসিবি দল একবারও আইপিএল শিরোপা জিততে পারেনি। তবে এই দলের মালিকও নিলামের পর্যন্ত সিদ্ধান্ত নেন, এরপর বাকিটা এতদিন বিরাট কোহলিকে পূর্ণ স্বাধীনতা দেয়া হয়েছিল।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *