আগের চার অধিনায়কের এক জনের ধারের কাছেও পৌছাতেপারলো না রাহুল

চলতি দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের দ্বিতীয় টেস্টে বিরাট কোহলি চোট পাওয়ার কারণে দল থেকে ছিটকে যান। এরপর নেতৃত্বভার পান কে এল রাহুল। এর আগেও তিনি ওয়ানডে সিরিজের জন্য রোহিত শর্মার অনুপস্থিতিতে অধিনায়কত্ব পান।

এদিন অধিনায়ক হিসেবে প্রথম টেস্টে কে এল রাহুল হাফসেঞ্চুরি করেছেন। তবে এর আগে চার ভারতীয় অধিনায়ক অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন। এবার বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক:

১) বিরাট কোহলি: ১১৫ রান ও ১৪১ রান

২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়া সফরে অ্যাডিলেডে বিরাট কোহলি প্রথমবার ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। এই টেস্টের দুই ইনিংসেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বিরল কৃতিত্ব অর্জন করেন। অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংসে ৫১৭ রান তোলে। জবাবে ভারতীয় দল বিরাট কোহলির ১১৫ রানের দৌলতে ৪৪৪ রান তোলে।

এরপর অস্ট্রেলিয়া ভারতের সামনে ৩৬৪ রানের টার্গেট দেয়। দ্বিতীয় ইনিংসে কোহলি ১৪১ রানের দুরন্ত ইনিংস খেললেও শেষ পর্যন্ত ভারতীয় দল ৩১৫ রানে অলআউট হয় এবং ৪৮ রানে পরাজিত হয়।

২) দিলীপ বেঙ্গসরকার: ১০ রান ও ১০২ রান

১৯৮৭ সালে দিল্লিতে অনুষ্ঠিত ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে একটি টেস্ট ম্যাচে দিলীপ বেঙ্গসরকার প্রথমবার দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। প্রথম ইনিংসে তার ব্যাট থেকে ১০ রান এলেও দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি ১০২ রানের একটি ঝকঝকে ইনিংস খেলে দলকে ৩২৭ রানে নিয়ে যান। এরপর ২৭৬ রানের তাড়া করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল ৫ উইকেট হারিয়ে প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয়।

৩) সুনীল গাভাস্কার: ১১৬ রান ও ৩৫* রান

১৯৭৬ সালে নিউজিল্যান্ড সফরে অকল্যান্ডে অনুষ্ঠিত একটি টেস্ট ম্যাচে ভারতীয় দলের নতুন অধিনায়ক হন সুনীল গাভাস্কার। প্রথম ইনিংসে তিনি ১১৬ রান করে ভারতীয় দলকে ৪১৪ রানে নিয়ে যান।

নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংস ও দ্বিতীয় ইনিংস যথাক্রমে ২৬৬ ও ২১৫ রানে ব্যর্থ হলে, ভারতের সামনে ৬৮ রানের লক্ষ্যমাত্রা রাখে। জবাবে ভারতীয় দল দুই উইকেটে প্রয়োজনীয় রান তুলে নেয়। দ্বিতীয় ইনিংসেও তিনি ৩৫ রানে অপরাজিত থাকেন।

৪ ) বিজয় হাজারে: ১৬৪* রান

১৯৫১ সালে দিল্লিতে অনুষ্ঠিত ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ভারতীয় দলকে প্রথমবার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বিজয় হাজারে। এই ম্যাচে ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ২০৩ রান করে। জবাবে বিজয় হাজারে দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে (১৬৪* রান) ভারতীয় দল ৬ উইকেট হারিয়ে ৪১৮ রান তুলে ডিক্লেয়ার করে। এরপর দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ড ৩৬৮ রান করে এবং শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি ড্র হয়ে যায়।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *