আবারো টিম ইন্ডিয়াকে খোঁচা দিলেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম

২০২১ সালের আগে একদিনের বিশ্বকাপে সাত বার ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাঁচ বার পাকিস্তানকে হারিয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। যদিও ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাবর আজমের নেতৃত্বে নতুন ইতিহাস গড়েছে প্রতিবেশী দেশ। ভারতকে হারানো ছাড়াও চারটি ম্যাচ জিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠেছিল পাকিস্তান।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশ পাকিস্তান গেল বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রথম বার ভারতকে পরাজিত করার গৌরব অর্জন করেছে। শুধুমাত্র টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নয়, বিশ্বকাপের আসরে ভারতকে প্রথমবার পরাজিত করেছে পাকিস্তান। যার নেপথ্যে দাঁড়িয়ে ছিলেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম এবং ওপেনিং ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ রিজওয়ান।

দুজনের অনবদ্য ব্যাটিং জুটিতে ১০ উইকেটে বিশ্বকাপের আসরে ভারতকে পরাজিত করে পাকবাহিনী। আর এই বিষয়টিকে নিয়ে ফের আরও একবার টিম ইন্ডিয়াকে খোঁচা দিলেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম।

তিনি বলেন, ২০২১ সালে আমাদের কাছে সেরা প্রাপ্তি ছিল ভারতকে বিশ্বকাপের মঞ্চে হারানো। ১৯৯২ সালের পর থেকে আমরা কখনো ভারতকে বিশ্বকাপের মঞ্চে হারাতে পারেনি। তবে এই বিশ্বকাপে আমরা অবিশ্বাস্যভাবে ভারতকে পরাজিত করেছি। আর তার থেকে বড় কথা, আমাদের তরুন প্রতিভা। আমরা সঠিক সময়ে আমাদের প্রতিভা তুলে আনতে সক্ষম হয়েছি।

আমি নিঃসন্দেহে বলতে পারি ২০২১ সালে বিশ্ব ক্রিকেটে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ ছিল সবচেয়ে আকর্ষিত ম্যাচ। আর সেই আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু ছিলাম আমরা। এটা আমাদের কাছে অনেক বড় প্রাপ্তি।

উল্লেখ্য, ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তান অপরাজেয় হয়ে উঠেছিল। গ্রুপ পর্যায়ে টানা পাঁচ ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালে পৌঁছেছিল তারা। যদিও সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজিত হয়ে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিতে হয় তাদের।

এই প্রসঙ্গে বাবর আজম উল্লেখ করেছেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের যাত্রা যেমন আমাদের কাছে স্বপ্নের মতো ছিল ঠিক শেষটা আমাদের কাছে দুঃস্বপ্নের মতো হয়ে দাঁড়িয়েছিল। অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজয় এখনো আমি কোনোভাবেই মেনে নিতে পারিনা। সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে পরাজিত হওয়ার ক্ষত সারাজীবন রয়ে যাবে আমার স্মৃতিতে।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের আগে একদিনের বিশ্বকাপে সাত বার ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাঁচ বার পাকিস্তানকে হারিয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। যদিও ২০২১ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাবর আজমের নেতৃত্বে নতুন ইতিহাস গড়েছে প্রতিবেশী দেশ। ভারতকে হারানো ছাড়াও চারটি ম্যাচ জিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠেছিল পাকিস্তান।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *