এবার কঠিন এক অগ্নি পরীক্ষার সামনে কোহলিরা

দক্ষিণ আফ্রিকায় বিরাট কোহলিদের প্রস্তুতি শুরু হয়ে যাওয়ার মধ্যেই বড় প্রশ্ন, ভারতের প্রথম একাদশ কী হতে যাচ্ছে? বক্সিং ডে-তে সেঞ্চুরিয়নে শুরু প্রথম টেস্ট। সেখানে আর কোহলি বনাম ভারতীয় বোর্ড বা সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় নয়।

সোজাসুজি রাবাডা-নখিয়া দুর্ধর্ষ পেস জুটি বনাম ভারতীয় ব্যাটিং। বুমরা-শামি বনাম দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং। গতি আর বাউন্সভরা বাইশ গজ বরাবরের মতোই দু’দলের ব্যাটসম্যানদের অগ্নিপরীক্ষায় ফেলতে চলেছে।

ক্যাপ্টেন কোহলির জন্য অনেক বেশি মাথাব্যথা নিয়ে উপস্থিত হতে চলেছে কোন এগারো জনকে তিনি বেছে নেবেন। কে এল রাহুলকে সহ-অধিনায়ক বেছে নিয়ে বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে,

তাঁকে ভবিষ্যতের নেতা হিসেবে দেখা হচ্ছে। রোহিত শর্মার অনুপস্থিতিতে রাহুল এবং মায়াঙ্ক আগরওয়াল ওপেন করবেন। তিনে চেতেশ্বর পুজারা। চারে কোহলি। এই পর্যন্ত ঠিক আছে। এর পরেই নানা প্রশ্ন।

পাঁচ নম্বরে কে? অজিঙ্ক রাহানেই খেলবেন? ফর্ম হারিয়ে সহ-অধিনায়কত্ব হারালেও দক্ষিণ আফ্রিকায় শেষ সফরে জোহানেসবার্গে প্রায় খেলার অযোগ্য, কঠিনতম পিচে রান করেছিলেন তিনি।

ছয় ব্যাটসম্যান, চার বোলারে খেলা হবে নাকি বরাবরের কোহলি-রণনীতি মেনে পাঁচ বোলারে নামবে ভারত? ছয় ব্যাটসম্যানে খেললে শেষ দুই জায়গার জন্য লড়াই তিন জনের মধ্যে। রাহানে, হনুমা

বিহারী এবং শ্রেয়স আয়ার। অভিষেক টেস্টে ১০৫ এবং ৬৫ করেছেন শ্রেয়স। আবার ভুললে চলবে না, হনুমার কথা অজ্ঞাত কারণে ভুলে গিয়েছিল চেতন শর্মার নেতৃত্বাধীন নির্বাচক কমিটি।

সাম্প্রতিক সময়ে যাদের একের পর এক সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক এবং বিস্ময় তৈরি হয়েছে। হনুমাকে তড়িঘড়ি দক্ষিণ আফ্রিকায় পাঠানো হয় ‘এ’ দলের সঙ্গে। তখন দাবি করা হয়, ভারতীয় দলের আসন্ন সফরের প্রস্তুতির জন্য তাঁকে পাঠানো হচ্ছে।

‘এ’ দলের হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় হনুমার স্কোর ২৫, ৫৪, ৭২ নট আউট, ৬৩ এবং ১৩ নট আউট। এই রানগুলি এসেছে ব্লুমফন্টেনে।

কানপুরের গ্রিন পার্ক, মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে আর সেঞ্চুরিয়ন পার্ক বা জোহানেসবার্গের ওয়ান্ডারার্স নিশ্চয়ই এক নয়। তা ছাড়া, তিনি কয়েক ওভার স্পিনও করে দিতে পারবেন।

রবীন্দ্র জাডেজার অনুপস্থিতিতে যদি অশ্বিনকে একমাত্র স্পিনার হিসেবে খেলায় ভারত, যদি চার বোলারে খেলার সিদ্ধান্ত হয়, অতিরিক্ত স্পিনারের কাজ করে দিতে পারবেন হনুমা। যাঁকে বিদেশের আগুনে পিচে বারবার ঠেলে দেওয়া হয়েছে এবং বারবার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন।

ওভালে অভিষেকে হাফ সেঞ্চুরি, নিউজ়িল্যান্ডে সকলে যখন ব্যর্থ তখন পাল্টা আক্রমণে ৫৫, সিডনিতে হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট নিয়েও অশ্বিনের সঙ্গে দুঃসাহসিক ড্র আদায় করে নেওয়া।

রাবাডাদের দেশে গতিসম্পন্ন, বাউন্সভরা পিচে অ্যালান ডোনাল্ডদের খেলার অভিজ্ঞতা থাকা রাহুল দ্রাবিড়কেও ভাবতে হবে, শ্রেয়সের স্কিল, জৌলুস নেবেন না হনুমার লড়াই? নাকি রাহানের অভিজ্ঞতা?

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *