এবার কোহলির অধিনায়কত্ব প্রসঙ্গে মুখ খুললেন টিম সাউদি, করলেন অবাক করা মন্তব্য

আমি নিশ্চিত ভাবে মনে করি, খুব তাড়াতাড়ি ও রানে ফিরবে। আমি ওর সাথে আইপিএল খেলার সময় একই ড্রেসিংরুম ভাগ করে নিয়েছি। খুব বেশিদিন চুপ থাকার পাত্র নন বিরাট কোহলি। লাল বলের ক্ষেত্রে আমার ভাগ্য ভালো যে বিরাটের সামনে আমাকে তেমন বেশি বল করতে হয় না।

বেশ কিছুদিন আগে পর্যন্ত ভারতীয় ক্রিকেটে একচ্ছত্র আধিপত্য করেছেন বিরাট কোহলি। ক্রিকেটের তিন ফরমেটে ভারতের হয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। প্রত্যেকটি ফরমেটে অত্যন্ত সফলতার সাথে নিজের দায়িত্ব পালন করেছিলেন বিরাট কোহলি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দুর্দান্ত সাফল্য পেলেও আইসিসি আয়োজিত কোন টুর্নামেন্টে শিরোপা জয় করতে পারেননি ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

ফলশ্রুতিতে একাধিক মাধ্যমে বিরাট কোহলিকে অধিনায়কত্ব থেকে সরানোর দাবি এসেছিল। চলতি বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে তিনি নিজেই জানিয়ে দেন টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে ভারতীয় দলের অধিনায়কত্ব ছাড়ছেন তিনি। যদিও ওয়ানডে এবং টেস্ট ক্রিকেটে নেতৃত্ব দিতে চেয়েছিলেন কিং কোহলি।

কিন্তু টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে পাশাপাশি ওডিআই ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব করা হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেটার রোহিত শর্মাকে। দিন কেটে গেছে, বর্তমানে বিরাট কোহলি নেতৃত্বে ভারতীয় দল দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ব্যস্ত রয়েছে।

ঠিক এই মুহূর্তে বিরাট কোহলির অধিনায়কত্ব প্রসঙ্গে মুখ খুললেন টিম সাউদি। তিনি সংবাদমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, আমি জানিনা ভারতীয় দলের অধিনায়ক হওয়া কিংবা আইপিএলে রয়েল চ্যালেঞ্জার ব্যাঙ্গালোরের অধিনায়ক হওয়া কতটা চাপের।

কিন্তু বিরাট কোহলির মানসিকতা ছিল সব সময় আগ্রাসী। খেলার প্রতি নিজের সর্বোচ্চটা দিতে কখনো পিছুপা হতেন না তিনি। সামান্য ব্যবধানেও যে ম্যাচে লড়াই করা সম্ভব সেটি তার নেতৃত্ব দেখলেই বোঝা যায়।

তিনি আরো যুক্ত করেন, একজন ফ্যানের দৃষ্টিভঙ্গিতে বলতে পারি যে, এবার আমি দেখতে চাই যে কোহলি কীভাবে ওর সব এনার্জি ব্যাটিং আর ফিল্ডিংয়ে দেয়।

আমি জানি কোহলি যে মানের ক্রিকেটার ওর কাঁধের ওপর আজীবন একটা ওজন থাকবে, যতদিন ও খেলা চালিয়ে যাবে।”কোহলির ব্যাট থেকে এত লম্বা লম্বা ইনিংস ক্রিকেটপ্রেমীরা দেখতে অভ্যস্ত যে সম্প্রতি দুই বছরে ভারতের জন্য সর্বাধিক রান সংগ্রহ করার পরেও সমালোচনায় উঠে এসেছেন তিনি। কারণ ভারতীয় ক্রিকেট প্রেমীদের আরো বেশি কিছু চাওয়ার রয়েছে বিরাট কোহলির কাছ থেকে।

আমি নিশ্চিত ভাবে মনে করি, খুব তাড়াতাড়ি ও রানে ফিরবে। আমি ওর সাথে আইপিএল খেলার সময় একই ড্রেসিংরুম ভাগ করে নিয়েছি। খুব বেশিদিন চুপ থাকার পাত্র নন বিরাট কোহলি।

লাল বলের ক্ষেত্রে আমার ভাগ্য ভালো যে বিরাটের সামনে আমাকে তেমন বেশি বল করতে হয় না। কারণ বিরাট সর্বদাই কাইল জেমিসনকে সমীহ করে খেলে। পুরনো ছন্দে ফিরলে বিরাটকে আটকে রাখা খুবই দুঃসাধ্য হয়ে পড়বে বলে মনে করেন টিম সাউদি।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *