এমন ঘটনা এবারই প্রথম নয়, কোহলি-বিসিসিআই ইস্যুতে অমিত মিশ্র

ওয়ানডের নেতৃত্ব কেড়ে নেয়ার পর থেকেই গুঞ্জন ছিল বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) সঙ্গে সম্পর্কের চিড় ধরতে শুরু করেছে বিরাট কোহলির।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে নেতৃত্ব ইস্যুতে কোহলি ও সৌরভ গাঙ্গুলির বিপরীতমুখী বক্তব্যে জন্ম দিয়েছে নতুন বিতর্ক। যা নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। এদিকে অমিত মিশ্রের দাবি, এমন ঘটনা এবারই প্রথম নয়।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়ে ভারতের ২০ ওভারের ক্রিকেটের নেতৃত্ব ছেড়েছেন কোহলি। নেতৃত্ব ছাড়ার সময় ওয়ার্কলোড ম্যানেজমেন্টের কথা বলেছিলেন সময়ের অন্যতম সেরা এই ব্যাটার। তবে কোহলির অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেয়ার ঘটনা নিয়েছে নতুন মোড়।

কদিন আগে বোর্ড সভাপতি গাঙ্গুলি জানিয়েছিলেন, টি-টোয়েন্টি থেকে অধিনায়কত্ব ছাড়তে না করেছিলেন তিনি। তবে বোর্ড সভাপতির এমন বক্তব্য অস্বীকার করেছেন কোহলি।

প্রোটিয়া সফরে যাওয়ার আগে ভারতের টেস্ট অধিনায়ক জানিয়েছেন, তাঁর সঙ্গে এসব নিয়ে কেউ কথা বলেনি। বরং কোহলির সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছিলেন বোর্ড কর্তারা।

এদিকে ওয়ানডের নেতৃত্ব থেকেও সরিয়ে দেয়া হয়েছে কোহলি। দলকে শিরোপা জেতাতে না পারলেও পরিসংখ্যান অধিনায়ক কোহলির পক্ষেই কথা বলে।

তবুও তাঁকে সরিয়ে দিয়ে রোহিতকে দায়িত্ব দেয়ায় খানিকটা সমালোচনা গুনতে হয়েছে বোর্ডকে। কোহলি-গাঙ্গুলির বিপরীতমূখী বক্তব্যে টালমাটাল ভারতের ক্রিকেট।

এ প্রসঙ্গে ভারতের সাবেক লেগ স্পিনার মিশ্র বলেন, ‘এমন ঘটনা এবারই প্রথম ঘটেনি। এটি আগেও ঘটেছে এবং আমি মনে করি যে একজন খেলোয়াড় যে এতো ভাল করেছে এবং দেশের জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছে তার জানার অধিকার থাকা উচিত কেন তাকে দল থেকে বা একটি নির্দিষ্ট অবস্থান থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। একজন খেলোয়াড়ের উচিত কোথায় তার অভাব রয়েছে এবং সেই দিকটিতে উন্নতি করা উচিত।’

ইনজুরির কারণে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে খেলা হচ্ছে না রোহিত শর্মার। এদিকে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম গত কয়েকদিনে দাবি করেছে, ওয়ানডে সিরিজে খেলবেন না বিরাট কোহলি। ৫০ ওভারের ক্রিকেটে নেতৃত্ব কেড়ে নেয়ায় খেলবেন না তিনি।

যদিও এসব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন কোহলি। সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে ভারতের টেস্ট অধিনায়ক জানিয়েছেন, দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ওয়ানডে সিরিজেও খেলবেন তিনি।

সেই সঙ্গে সময়ের অন্যতম সেরা এই ব্যাটার নিশ্চিত করেছেন রোহিত এবং তাঁর মাঝে কোনো দ্বন্দ্ব নেই। এদিকে মিশ্রেরও দাবি, কোহলি-রোহিতের মাঝে কোনো ঝামেলা নেই।

মিশ্র বলেন, ‘উভয় খেলোয়াড়েরই জীবনের প্রতি এমন ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে। মাঠে থাকলেও তাদের মধ্যে ভালো যোগাযোগ রয়েছে। তারা সবসময় দলের জন্য তার শতভাগ দেয়।

আমি মনে করি কোহলি একজন অধিনায়ক হিসেবে দারুণ কাজ করেছেন এবং এখন রোহিতের পালা তার খেলা খেলতে এবং নিজেকে একজন বড় খেলোয়াড় এবং অধিনায়ক হিসেবে প্রমাণ করার।’

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *