গত চার মাসে যে ভাবে সিংহাসনচ্যুত হলেন বিরাট কোহলি

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজ হারের বড়সড় চমক দিলেন বিরাট কোহলি। ভারতীয় টেস্ট দলের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিলেন। পরে তাঁকে একদিনের দলের অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল। শনিবার ইনস্টাগ্রাম পোস্টে বিরাট বলেন, ‘দলকে সঠিক দিকে নিয়ে যেতে সাত বছরের প্রতিটা দিন পরিশ্রম করেছি।

নেটমাধ্যমে এই ঘোষণার ২৪ ঘণ্টা আগে তিনি প্রথমে ভারতীয় দলের কোচ রাহুল দ্রাবিড়কে নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন। তার পর সতীর্থদের জানান।

দেখে নেওয়া যাক, গত চার মাসে কী ভাবে একে একে তিন ঘরানার ক্রিকেটেই অধিনায়কত্ব হারাতে হয়েছে কোহলীকে।

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১: সে বারও কোহলী টুইট করে জানান, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরে তিনি এই ঘরানার ক্রিকেটে আর অধিনায়কত্ব করবেন না।

কিন্তু জানিয়ে দেন, এক দিনের ক্রিকেটে তিনি অধিনায়কত্ব করবেন। দেশের মাটিতে ২০২৩ সালে এক দিনের ক্রিকেটের বিশ্বকাপে তিনি দেশকে নেতৃত্ব দিতে ইচ্ছুক ছিলেন।

৭ নভেম্বর, ২০২১: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয় ভারত। শেষ চারে উঠতে পারেনি কোহলীর নেতৃত্বাধীন দল। এর পরেই বোর্ড মোটামুটি ঠিক করে ফেলে, এক দিনের ক্রিকেটেও কোহলীকে আর অধিনায়ক রাখা হবে না।

৮ ডিসেম্বর, ২০২১: দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য এক দিনের দল ঘোষিত হয়। রোহিত শর্মা নতুন অধিনায়ক হন। তার আগে টেস্ট দল ঘোষণার সময়ই বোর্ড জানিয়ে দিয়েছিল, সাদা বলের ক্রিকেটে তারা একজন অধিনায়কই চায়। তাই কোহলীকে আর এক দিনের ক্রিকেটের অধিনায়ক রাখা হবে না।

১১ ডিসেম্বর, ২০২১: ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় জানান, তিনি সেপ্টেম্বরে ব্যক্তিগত ভাবে কোহলীকে বলেছিলেন, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের অধিনায়কত্ব না ছাড়তে। কারণ বিসিসিআই চায় না, সাদা বলের ক্রিকেটে দু’ জন অধিনায়ক থাকুক।

১৫ ডিসেম্বর, ২০২১: দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার আগে সাংবাদিক সম্মেলনে কোহলী বলেন, কেউ তাঁকে টি-টোয়েন্টি অধিনায়কত্ব না ছাড়ার জন্য অনুরোধ করেননি। সৌরভের বক্তব্যের সম্পূর্ণ উল্টো সুর শোনা যায় কোহলীর গলায়।

এমনকী সৌরভ যেখানে বলেছিলেন, এক দিনের ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব থেকে সরানো নিয়ে কোহলীর সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে, সেখানে কোহলী ওই সাংবাদিক সম্মেলনে বলে দেন, দল নির্বাচনের মাত্র দেড় ঘণ্টা আগে তাঁকে জানানো হয়েছে, তাঁকে আর অধিনায়ক রাখা হবে না। পাঁচ নির্বাচক তাঁকে ফোনে এই কথা জানিয়েছিলেন।

৩১ ডিসেম্বর, ২০২১: ভারতের নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যান চেতন শর্মাকে সাংবাদিক সম্মেলনে পাঠানো হয়। চেতনও কোহলীর বক্তব্যের সম্পূর্ণ বিরোধিতা করেন। বলেন, শুধু সৌরভ নন, সেই সভায় থাকা প্রত্যেকে কোহলীকে তাঁর সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করার জন্য বলেছিলেন।

১৪ জানুয়ারি, ২০২২: দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে কেপ টাউন টেস্টে হেরে সিরিজও হারে ভারত। কোহলীকে স্টাম্প ক্যামেরার সামনে এসে মাথা গরম করতে দেখা যায়।

১৫ জানুয়ারি, ২০২২: সন্ধেয় টুইট করে কোহলী জানিয়ে দেন, তিনি আর টেস্ট ক্রিকেটেও অধিনায়ক থাকছেন না।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *