টেস্ট ক্রিকেটে ভারতের বিপক্ষে ৯৫২ রানের রেকর্ড গড়েন শ্রীলঙ্কা, যা আজও অক্ষত

টেস্ট ক্রিকেটে খেলোয়াড়রা বড় বড় ইনিংস খেলার জন্য পরিচিত। এই ফরম্যাটে ব্যাটসম্যানদের খেলার জন্য পুরো সময় থাকে। তবে টেস্ট ক্রিকেটের ব্যাটসম্যানের ধৈর্যের পরীক্ষা হয় এবং সফল হলে তিনি বড় ইনিংস খেলতে সক্ষম হন। এই দীর্ঘ সংস্করনের খেলায় প্রায় অনেক ব্যাটসম্যান অসাধারণ ইনিংস খেলেছেন।

টেস্ট ক্রিকেটে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ৪০০ রান করার রেকর্ড রয়েছে ব্রায়ান লারার। এছাড়া ম্যাথু হেডেনও ৩৮০ রান করেছেন। আসলে ব্যাটসম্যানরা যখন বড় বড় ইনিংস খেলতে সক্ষম হন তখন সেই দলের স্কোরও অনেক বেশি হয়। তবে এখনও পর্যন্ত টেস্টের একটি ইনিংসে দুইবার ৯০০-র বেশি দলীয় স্কোর হয়েছে। যার মধ্যে একটি ভারতের বিপক্ষে।

□ ইংল্যান্ড দল: ৯০৩ রান

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এই কৃতিত্ব অর্জন করে ইংল্যান্ড দল। ম্যাচটি হয়েছিল ৮৩ বছর আগে ১৯৩৮ সালে। ওভালে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে ইংল্যান্ড প্রথমে ব্যাট করে ৭ উইকেটে ৯০৩ রান করে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে।

ইংল্যান্ডের হয়ে স্যার লিওনার্ড হাটন ৩৬৪ রানের ম্যারাথন ইনিংস খেলেন। এছাড়াও মরিস লেল্যান্ড ১৮৭ রান ও জো হার্ডস্টাফ ১৬৯ রানে অপরাজিত থাকেন। জবাবে অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংসে ২০৩ এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ১২৩ রানে গুটিয়ে যায় এবং ইংল্যান্ড একটি ইনিংস সহ ৫৭৯ রানে জিতে নেয়।

□ শ্রীলঙ্কা দল: ৯৫২ রান

১৯৯৭ সালে কলম্বোতে অনুষ্ঠিত ভারতের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কা দল এই কৃতিত্ব অর্জন করে। ভারত প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেটে ৫৩৭ রান করে ইনিংস ডিক্লেয়ার করেছিল। জবাবে শ্রীলঙ্কা ৬ উইকেটের বিনিময়ে ৯৫২ রানের পাহাড় খাড়া করে। টেস্টের ইতিহাসে কোনো একটি ইনিংসে এটাই সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড।

শ্রীলঙ্কার হয়ে সনাথ জয়সুরিয়া ৩৪০ রানের একটি ম্যারাথন ইনিংস খেলেন এবং এর পাশাপাশি রোশন মহানামা ২২৫ রান করেছিলেন। তবে ম্যাচটি ড্র হয়ে যায়।

ভারতের হয়ে শচীন টেন্ডুলকার ১৪৩ রান করেন এবং তিনি সেই দলের অধিনায়ক ছিলেন। এছাড়া নভজোৎ সিং সিধু ও মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনও সেঞ্চুরি করেছিলেন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *