তোলপাড় ক্রিকেবিশ্ব, এবার ভয়ঙ্কর কোহলিকে নিয়ে নতুন যুক্তি দেখালেন গম্ভীর, হগ

ওয়ান ডে-র নেতৃত্ব হারানোর পরে সাদা বলের ক্রিকেটে আরও ভয়ঙ্কর ব্যাটার হয়ে উঠতে পারেন বিরাট কোহলি। এমনটাই মনে করেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার গৌতম গম্ভীর।

দিল্লির হয়ে একসঙ্গেই খেলতেন গম্ভীর ও কোহলি। তাঁরা দু’জনেই আগ্রাসী ক্রিকেটার। কঠিন পরিস্থিতি থেকে কী ভাবে বেরিয়ে আসতে হয়, দু’জনেই জানেন।

গম্ভীর সামনে থেকে দেখেছেন কোহলির উত্থান। তাই প্রাক্তন ক্রিকেটারের বলতে দ্বিধা নেই, ‘‘বিরাট হয়তো আরও ঠান্ডা মাথায় ব্যাট করতে পারবে। নেতৃত্বের যে প্রবল চাপ ছিল, সেটা মাথা থেকে নেমে যাওয়ার পরে অনেকটা হাল্কা হয়ে যায় মানসিক ধকল।’’

গম্ভীর নিজেও আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে দীর্ঘদিন নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি জানেন, একজন অধিনায়ককে কতটা চাপ সামলাতে হয়। তাই বলেছেন, ‘‘রোহিত শর্মা টেস্টে যেমন মাথায় ঠান্ডা রেখে খেলতে পারে, বিরাটও সে রকমই ওয়ান ডে-তে ভাল ব্যাট করার সুযোগ পাবে। কোহলি হয়তো আরও ভয়ঙ্কর হয়ে
যেতে পারে।’’

গম্ভীর নিশ্চিত, বিরাট আবারও ভারতীয় ক্রিকেট সমর্থকদের গর্বিত করবেন। বলেছেন, ‘‘লাল বলের ক্রিকেট ও সাদা বলের ক্রিকেটে বিরাটের এখনও অনেক কিছু দেওয়ার আছে।

রোহিত ও বিরাট দু’জনেই এখন দলকে পরামর্শ দিতে পারবে। দু’জনেই ভাল অধিনায়ক। ওরা একসঙ্গে ভাল খেললে ভারতীয় ক্রিকেটের উপকারই হবে।’’

গম্ভীর মনে করেন, নেতৃত্ব হারালেও বিরাটের মধ্যে আগ্রাসন কখনও কমবে না। তাঁর মন্তব্য, ‘‘বিরাটের কাছ থেকে এখনও অনেক কিছু আশা করে দেশ।

আমার বিশ্বাস, ও নিশ্চয়ই দেশকে আরও গর্বিত করবে। ওর মধ্যে যে আগ্রাসনটা ছিল, সেটা কোনও ভাবেই কমবে না। আগের মতোই উইকেট পড়ার পরে ও নিশ্চয়ই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করবে।’’

প্রাক্তন অস্ট্রেলীয় স্পিনার ব্র্যাড হগ আবার জানিয়েছেন, বিরাটের জন্য এই সিদ্ধান্ত আশীর্বাদের মতো। মাথা গরম না করে তিনি যেন এই সিদ্ধান্ত মেনে নেন।

হগ বলেছেন, ‘‘আমি মনে করি, এই সিদ্ধান্ত বিরাটের জন্য খুবই ভাল হতে চলেছে। ওর মেনে নেওয়া উচিত। মাথা ঠান্ডা করে ক্রিকেট নিয়ে ভাবা উচিত। টেস্ট দলকে কী ভাবে নেতৃত্ব দেবে, সেটা নিয়ে মনোনিবেশ করলে ওর পক্ষেই ভাল।’’

যোগ করেন, ‘‘রোহিত আপাতত সাদা বলের ক্রিকেটের নেতৃত্ব নিয়ে ভাববে। বিরাট চিন্তা করবে টেস্ট ক্রিকেট নিয়ে। বিরাটের উপর থেকে অনেকটা চাপ কমে যাবে।’’

হগ চান না ভারতীয় ড্রেসিংরুমে এই সিদ্ধান্তের কোনও প্রভাব পড়ুক। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে তিনি বলেছেন, ‘‘দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রত্যেকে যেন একসঙ্গে থাকে।’’

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *