দল যখন কঠিন বিপদে, তখনই যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে নির্বাচকদের চোখ কপালে তুলে দিলেন হার্দিক পান্ডিয়া

আইপিএলে অভিযান শুরু হয়েছিল তাঁর মুম্বই ইন্ডয়ান্সের জার্সিতে। ২০১৫ সালে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে আইপিএলে অভিষেক হয়েছিল হার্দিক পান্ডিয়ার। সেই থেকে আইপিএলের মঞ্চে সাফল্যের যাত্রা শুরু তাঁর। দীর্ঘ সাতবছরের সম্পর্ক ছিন্ন করে এবার হার্দিকের গন্তব্য টিম আহমেদাবাদ।

গুজরাত থেকে এই প্রথমবার আইপিএলের কোনও দল এসেছে। আর ঘরের ছেলেকেই অধিনায়ক হিসাবে বেছে নিয়েছেন তারা। ১৫ কোটি কাটায় হার্দিক পান্ডিয়াকে দলে নিয়েছে আহমেদাবাদ। আহমেদাবাদকে জেতানোর প্রতিজ্ঞাই করলেন হার্দিক।

নতুন দুই ফ্র্যাঞ্চাইজি আসার পর থেকেই শোনা যাচ্ছিল কানাভুসো। আসন্ন আইপিএলে আহমেদাবাদের অধিনায়ক হিসাবে দেখা যেতে পারে হার্দিককে। এই জল্পনা বেশ কয়েকদিন ধরেই চলছিল।

শুক্রবার রাতে তাতেই সরকারী শিলমোহর পড়ে। ১৫ কোটি টাকায় আহমেদাবাদের অধিনায়ক হয়েছেন তিনি। আইপিএলের মঞ্চে এই প্রথমবার এবার নতুন ভূমিকায় দেখা যাবে হার্দিককে। আর মাঠে নামার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন হার্দিক।

আহমেদাবাদে সুযোগ পেয়ে আপ্লুত হার্দিক। নতুন দায়িত্ব পালনের জন্য প্রস্তুত ভারতের তারকা অলরাউন্ডার। নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজি হলেও, আসন্ন আসন্ন আইপিএলে লড়ার জন্য তারা প্রস্তুত।

নিজের একশো শতাংশ দেবেন বলেও কথা দিলেন হার্দিক পান্ডিয়া। আহমেদাবাদে যাওয়ার পরই হার্দিক জানান, “নতুন দায়িত্ব পেয়ে আমি আপ্লুত। আমাকে এমন দায়িত্বের জন্য বাছায় আমি সকলের কাছে কৃতজ্ঞ।

গুজরাতবাসীকে কথা দিচ্ছি আমরা নিজেদের একশো শতাংস দেবো এবং শেষপর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাব”। হার্দিক পান্ডিয়াই শুধু নয়। এবারের আইপিএলে প্রথম তিন ক্রিকেটারকে নিয়ে রীতীমত চমক দেখিয়ে দিয়েছে নতুন ফ্র্যা়্চাইজি আঈহমেদাবাদ

হার্দিকের সঙ্গেই দলে এসেছেন রশিদ খান ও শুভমন গিল। রশিদ খান কোন দলে যান, এবার সেদিকেই ছিল সকলের নজর। রশিদ খানকে নেওয়ার লড়াইয়ে আহমেদাবাদের সঙ্গে ছিল লখনউও। চলছিল দল কষাকষি।

অবশেষে সেই দৌড়ে আহমেদাবাদই এগিয়ে যায়। শেষপর্যন্ত ১৫ কোটি টাকায় রসিদ খানকে দলে নিয়ে নেয় আহমেদাবাদ। একইসঙ্গে ৮ কোটি টাকায় শুভমন গিলকেও নেয় তারা।

দলের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন সদ্য হওয়া অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া। এমন দুই তারকাকে পেয়ে দল আরও শক্তিশালী হবে বলেই মনে করছেন তিনি। হার্দিক জানান, “এই দুই ক্রিকেটারকে আমি সামনে থেকে দেখেছি।

তাদের দক্ষতা সম্বন্ধেও ওয়াকিবহাল রয়েছি যথেষ্ট। তারা যে কোনও সময় ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারেন, তা আমি নয় সকলেই জানেন”। আইপিএলের মঞ্চে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের জার্সিতে বহু সাফল্য রয়েছে হার্দিক পান্ডিয়ার।

ব্যাটের পাশাপাশি বল হাতেও নিজের যোগ্যতা বারবার প্রমান করেছেন তিনি। মুম্বইয়ের হয়ে এখনও পর্যন্ত আইপিএলে ৯২টি ম্যাচ খেলেছেন এই তারকা অলরাউন্ডার। রান করেছেন ১৪৭৬ আর স্ট্রাইকরেট রয়েছে ১৫৩.৯১।

শুধু তাই নয় উইকেটও রয়েছে ৪২টি। যদিও গত মরসুমটা আইপিএলে খুব একটা ভাল যায়নি হার্দিক পান্ডিয়ার। কোমড়ের চোটের জন্য অল রাউন্ডারের ভূমিকায় দেখা যায়নি তাঁকে।

প্রথমের দিকে বেশ কয়েকটি ম্যাচে খেলতেও পারেননি তিনি। যদিও এখন হার্দিক চোট সারিয়ে অনেকাটই সুস্থ। আহমেদাবাদের হয়ে নতুন ইনিংস শুরুর অপেক্ষায় রয়েছেন রকস্টার পান্ডিয়া।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *