প্রথম বারের মত ওয়ানডে দলে ডাক পেয়েই বোমা ফাটালেন ভেঙ্কটেশ আইয়ার

অলরাউন্ডার ভেঙ্কটেশ আইয়ারের কাছে ২০২১ একটি স্মরণীয় বছর হয়ে থাকবে। প্রথমে আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে নির্বাচিত হওয়ার পর টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় পর্যায়ে বিস্ফোরক ব্যাটিং করে সবার নজর কাড়লেন।

তারপর নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজে জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক। বছরের শেষ দিনে এসে দক্ষিণ আফ্রিকার ওয়ানডে সিরিজের স্কোয়াডে ডাক পেলেন।

আইয়ার নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথমবার জাতীয় দলের জার্সি গায়ে তোলার পর ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরে বিজয় হাজারে ট্রফিতে মধ্যপ্রদেশের হয়ে দুর্দান্ত ফর্ম প্রদর্শন করেছিলেন এবং তার পুরস্কারস্বরূপ দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন।

হার্দিক পান্ডিয়ার অনুপস্থিতিতে অলরাউন্ডার হিসেবে নিজেকে মেলে ধরার সুযোগ ভেঙ্কটেশ আইয়ারের সামনে। প্রখ্যাত সাংবাদিক বোরিয়া মজুমদারের সাথে কথা বলার সময়, আইয়ার বলেছেন যে তিনি না থেমে একজন ক্রিকেটার হিসাবে ক্রমাগত বিকশিত হতে চান এবং আরও নমনীয় হতে চান।

“ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি আমি একজন অলরাউন্ডার এবং সেভাবেই বিকশিত হতে চেয়েছিলাম, আমি সবসময় একজন ক্রিকেটার হিসাবে বিকশিত হতে চাই।

যার মানে শুধু ব্যাটিং বা বোলিং নয়, ফিল্ডিং ও মাঠে নেমে আমার নেতৃত্বের দক্ষতাও বাড়াতে চাই। অধিনায়ককে দরকারের সময় পরামর্শ দেওয়া বা বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া। যদি অধিনায়ক হিসেবে নাও থাকি,

তবুও নেতৃত্বের দক্ষতা দেখিয়ে দলের পক্ষে অবদান রাখা যায়। তাই আমি মনে করি এটি খুব গুরুত্বপূর্ণ,” আইয়ার বলেছিলেন। তিনি আরও বলেছেন, “তাই আমি এটি নিয়ে পরিশ্রম করছি এবং আমি সত্যিই খুশি যে আমি উন্নতি করছি।

আমি আমার কোটা (বোলিংয়ের) পূরণ করছি, আমি কখনও কখনও ব্যাটিং অর্ডারের উপরে নামছি এবং কখনও কখনও ফিনিশারের ভূমিকাও পালন করছি। নমনীয় রাখছি নিজেকে, আর এমনটাই হতে চাই আমি।”

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য প্রস্তুত আইয়ার বলেছেন যে তিনি দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার বিষয়ে উচ্ছ্বসিত, তবে সিরিজের প্রস্তুতির জন্য তাড়াহুড়ো করছেন না। “আমি পরিস্থিতিকে সহজভাবে নিই। আমি এক এক করে ধীরে ধীরে এগোই।

অবশ্যই আমার মাথায় থাকবে সেখানে কীভাবে বাউন্সি ট্র্যাকের জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। একজন বোলার হিসেবে, ফিল্ডার হিসেবে এবং একজন ব্যাটার হিসেবে,” আইয়ার বলেন।

আইয়ার শেষে বলেছেন, “সবকিছুই ঠিকঠাক এগোচ্ছে, কিন্তু আমি এখনও এক দিন ধরে ধরে এগোচ্ছি। এই মুহূর্তে আমার ফোকাস আগামীকালের জন্য কীভাবে প্রস্তুতি নেওয়া যায়, যেমন পরবর্তী অনুশীলন সেশনে এবং তারপরের অনুশীলন সেশনে।

আমি দক্ষিণ আফ্রিকায় পৌঁছানোর সাথে সাথে, সেখানকার পরিস্থিতি অনুযায়ী অনুশীলন করব। সেখানকার পিচে কীভাবে খেলতে হবে সেটাও আমার মাথায় আছে।”

হার্দিক পান্ডিয়ার অনুপস্থিতিতে ভারতীয় দলের অলরাউন্ডারের জায়গাটি খালি পড়ে আছে। এখন দেখার ভেঙ্কটেশ সুযোগ কাজে লাগিয়ে জায়গাটি নিজের নামে করতে পারেন কিনা

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *