বিবাহ বিচ্ছদের পর সমালোচকদের যোগ্য জবাব দিয়ে, দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন ধাওয়ানের

শিখর ধবন দিল্লিতে জন্মগ্রহণকারী ভারতের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে তিনি অভিষেক টেস্ট ক্রিকেটার হিসেবে সবচেয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরি করার গৌরব অর্জন করেন।

ভারতীয় দলের তারকা বাঁ-হাতি ওপেনার শিখর ধাওয়ানের ২০২১ বছরটা গেছে দুঃস্বপ্নের মতো। গত বছর স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায় শিখর ধাওয়ানের। তারপর সকল ফরম্যাটেই জাতীয় দল থেকে বাদ পড়েন তিনি।

তবে এত খারাপ সময়ের মধ্যেও ধাওয়ান ভেঙে পড়েননি বা সাহস হারাননি। খারাপ সময় কাটিয়ে দলে প্রত্যাবর্তন করে নিজের জাত চিনিয়েছেন তিনি। সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে ধাওয়ান জানিয়েছেন যে কীভাবে তিনি এই খারাপ সময়টি কাটিয়ে উঠতে পেরেছিলেন।

ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান বিশ্বাস করেন যে তার কেরিয়ারের প্রতিটি কঠিন পর্যায় তাকে মানসিকভাবে আরও ‘শক্তিশালী’ করে তুলেছে। তিনি জানিয়েছেন যে শুধুমাত্র তার মনের স্বচ্ছতা এবং শান্ততার কারণেই তিনি এই পর্বটি অতিক্রম করতে পেরেছিলেন।

এইমুহূর্তে ভারতীয় ওডিআই দলের সবচেয়ে বয়স্ক খেলোয়াড় ধাওয়ান সম্প্রতি ঘরোয়া ক্রিকেটেও চূড়ান্ত খারাপ ফর্ম দেখিয়েছেন। কিন্তু তারপরেও তাকে দলে সুযোগ দেওয়া নিয়ে অনেকে ব্যাপারটি ভালোভাবে নেননি।কিন্তু ভারতীয় দল তার অভিজ্ঞতার ওপর ভরসা করেছিল।

প্রথম ম্যাচে তার ওপর রাখা ভরসার মান ও রেখেছেন ধাওয়ান। সমালোচকদের যোগ্য জবাব দিয়ে তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম ওডিআইতে ৭৯ রান করে দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন করেছিলেন। যদিও ভারতকে জয় এনে দিতে পারেননি তিনি।

ম্যাচ-পরবর্তী ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে ধাওয়ানকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল যে তিনি কীভাবে নিজেকে নেতিবাচকতা থেকে দূরে রাখেন, তিনি বলেছিলেন, “আমি মিডিয়ার কথায় কান দিই না। আমি সংবাদপত্র পড়ি না এবং টিভিতেও সংবাদ দেখি না।

ফলে নেতিবাচক সব তথ্য কানে আসে না। আমি শান্ত থাকার চেষ্টা করি। খারাপ সময় জীবনের অংশ, প্রত্যেকের জীবনে এমনটা ঘটে। প্রত্যেকের জীবনেই উত্থান-পতন থাকে, তাই এতে নতুন কিছু নেই।”

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *