বীরেন্দ্র সেহবাগ ও গৌতম গম্ভীরকে টপকে অনন্য এক রেকর্ড গড়লেন কেএল রাহুল ও ময়াঙ্ক আগরওয়াল

লোকেশ রাহুল কর্ণাটকের ম্যাঙ্গালোরে জন্মগ্রহণকারী ভারতের উদীয়মান ক্রিকেটার। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য তিনি। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে থাকেন।

কেপটাউনে শুরু হয়েছে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের তৃতীয় তথা শেষ টেস্ট । মঙ্গলবার টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় ভারত।

এদিন কেএল রাহুল ও ময়াঙ্ক আগরওয়ালের ওপেনিং জুটি স্কোরবোর্ডে মাত্র ৩১ রান যোগ করে। অল্প রান করেই কর্ণাটকের দুই বন্ধু ভারতের হয়ে ম্য়ান্ডেলার দেশে ইতিহাস লিখে ফেললেন।রাহুল এদিন ১২ রান করে ডুয়ানে অলিভিয়ারের বলে খোঁচা দিয়ে উইকেটকিপার কাইল ভেরিনের হাতে ক্যাচ তুলে দেন।

রাহুল ফেরার এক ওভারের মধ্যেই তাঁর বন্ধু ময়াঙ্কও সাজঘরে ফিরে আসেন। ময়াঙ্কের ব্যাট থেকে আসে ১৫ রান। কাগিসো রাবাদার বলে তিনি আইডেন মারক্রমের হাতে ক্যাচ আউট হন।

রাহুল-ময়াঙ্কের ওপেনিং জুটি দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে টেস্টে ২০০-র বেশি রান করে ফেললেন। তাঁরা টপকে গেলেন বীরেন্দ্র শেহওয়াগ ও গৌতম গম্ভীরকে । বীরু-গৌতি এতদিন ছিলেন মগডালে।

ভারতের প্রাক্তন দুই ওপেনার ম্যান্ডেলার দেশে টেস্টে ১৮৪ রান করেছিলেন। তিনে আছেন ওয়াসিম জাফর ও দীনেশ কার্তিক । তাঁদের ব্যাটে আসে ১৫৩ রান।এর আগে সিরিজের প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরিয়নে অনন্য ইতিহাস লেখেন রাহুল-ময়াঙ্ক।

প্রথম ইনিংসে ওপেন করতে নেমে তাঁরা ১১৭ রান যোগ করেন স্কোরবোর্ডে। তাঁরা ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে তৃতীয় ওপেনিং জুটি হিসাবে রামধনু দেশে ১০০ রানের পার্টনারশিপ করেছিলেন।

২০০৭ সালে জাফর-কার্তিক কেপটাউনে ১৫৩ রানের পার্টনারশিপ করেছিলেন। এর তিন বছর পর গম্ভীর-শেহওয়াগ ১৩৭ রান করেছিলেন। সেঞ্চুরিয়নের রাহুল-ময়াঙ্ক সফররত দেশের দুই ওপেনার হিসাবে শতরানের যুগলবন্দি করেছিলেন। যা ওই মাঠে দ্বিতীয়বার ঘটেছিল।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *