বুমরাহ-শামিকে বাদ দিয়ে কোহলিকে দলে রেখে এশিয়া কাপের জন্য ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করলো বিসিসিআই

প্রত্যাশিত ভাবেই এশিয়া কাপের দলে ফিরলেন বিরাট কোহলী। সাম্প্রতিক কালে বিভিন্ন সিরিজে বিশ্রাম নেওয়ার পর প্রত্যাবর্তন হল তাঁর।

ঘোষণা হয়ে গেল এশিয়া কাপের দল। প্রত্যাশিত ভাবেই ফিরলেন বিরাট কোহলী। সাম্প্রতিক কালে বেশ কিছু সিরিজে বিশ্রাম নিয়েছিলেন। এশিয়া কাপের দলে আবার তাঁকে দেখা যেতে চলেছে। সোমবার ১৫ জনের যে দল বেছে নিয়েছেন নির্বাচকরা,

তাতে চমকও রয়েছে। নেওয়া হয়েছে অর্শদীপ সিংহ, রবি বিষ্ণোইয়ের মতো তরুণ ক্রিকেটারকে। অভিজ্ঞ রবিচন্দ্রন অশ্বিনও সুযোগ পেয়েছেন। চোটের কারণে দলে জায়গা পেলেন না যশপ্রীত বুমরা। বাদ দেওয়া হল মহম্মদ শামিকে।

ইংল্যান্ডে সীমিত ওভারের সিরিজ খেলার পর আর মাঠে দেখা যায়নি কোহলীকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর থেকে বিশ্রাম নেন। আসন্ন জিম্বাবোয়ে সফরেও তিনি নেই। এমনিতেই বহু দিন ধরে তাঁর ব্যাটে বড় রান নেই।

এমন অবস্থায় ক্রিকেটপ্রেমীদের আশা, এশিয়া কাপে জ্বলে উঠবেন কোহলী। সামনে পাকিস্তান থাকলে এমনিতেই তাঁকে ভাল ছন্দে দেখা যায়। এশিয়া কাপে তিন বার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে খেলতে হতে পারে ভারতকে। ফলে ছন্দে ফেরার জন্য এর থেকে ভাল সুযোগ কোহলীর আছে বলে কেউই মনে করছেন না।

দল নির্বাচনে আরও দু’টি বিষয় লক্ষণীয়। প্রথমত, চোটের কারণে যশপ্রীত বুমরার ছিটকে যাওয়া। দ্বিতীয়ত, টি-টোয়েন্টি দল থেকে মহম্মদ শামিকে বাদ দেওয়া। বোর্ডের তরফে জানানো হয়েছে,

বুমরা এখনও চোট কাটিয়ে সুস্থ হতে পারেননি। এই মুহূর্তে বেঙ্গালুরুর জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমিতে রয়েছেন তিনি। তাঁর সঙ্গেই রয়েছেন হর্ষল পটেল, যাঁর চোট এখনও সারেনি।

শামি অবশ্য অনেক দিন ধরেই টি-টোয়েন্টি দলে নেই। তাঁকে যে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের জন্যে আর ভাবা হচ্ছে না, এটা অনেক দিন শোনা যাচ্ছিল। এশিয়া কাপের দল ঘোষণার পর সেটাই সত্যি হল। এক সময় ভারতের পেস জুটির অন্যতম দুই মুখ ছিলেন বুমরা এবং শামি। সেই জুটি এশিয়া কাপে দেখা যাবে না।

ভারতের মূল দলে নেওয়া হয়নি শ্রেয়স আয়ারকে। সম্প্রতি খুব একটা ভাল ছন্দে নেই তিনি। ইংল্যান্ড বা ওয়েস্ট ইন্ডিজে তাঁর ব্যাটে বড় রান দেখা যায়নি। সুযোগ পেয়েও বার বার ব্যর্থ হয়েছেন। শর্ট বলে তাঁর দুর্বলতা ধরা পড়েছে।

সঙ্গত কারণেই কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক এশিয়া কাপের দল থেকে ছিটকে গিয়েছেন। তবে স্ট্যান্ডবাই হিসাবে দলে শ্রেয়স রয়েছেন। আরও দুই স্ট্যান্ডবাই ক্রিকেটার হিসাবে দীপক চাহার এবং অক্ষর পটেলের নাম ঘোষণা করা হয়েছে।

বদলে ভারতের নতুন পেস জুটি হিসাবে দেখা যেতে চলেছে অর্শদীপ সিংহ, আবেশ খানের মতো তরুণদের। স্পিন বিভাগে আবার তরুণ রবি বিষ্ণোইকে যেমন নেওয়া হয়েছে, তেমনই অভিজ্ঞ রবিচন্দ্রন অশ্বিনকেও দলে রাখা হয়েছে। তারুণ্য এবং অভিজ্ঞতার মিশেলেই দল গড়তে চেয়েছেন নির্বাচকরা।

সূত্রের খবর, এশিয়া কাপের দলই আসলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল দল। পারফরম্যান্স বা চোটের কারণে দু’-একটি বদল হতে পারে। না হলে এই দলই অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নেবে।

পুরো দল: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), কে এল রাহুল (সহ-অধিনায়ক), বিরাট কোহলী, সূর্যকুমার যাদব, দীপক হুডা, ঋষভ পন্থ, দীনেশ কার্তিক, হার্দিক পাণ্ড্য, রবীন্দ্র জাডেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, যুজবেন্দ্র চহাল, রবি বিষ্ণোই, ভুবনেশ্বর কুমার, অর্শদীপ সিংহ এবং আবেশ খান।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.