যে কারণে রাহুল দ্রাবিড়কে সালাম ঠুকলেন সৌরভ

অভিষেকেই নিজের কোচিংয়ের মাহাত্ম্য বুঝিয়ে দিয়েছেন রাহুল দ্রাবিড়। ভারত দেশের মাটিতে পর্যুদস্ত করেছে নিউজিল্যান্ডকে। টি২০ হোক বা ওয়ানডে দ্রাবিড়ের টিম ইন্ডিয়াট কাছে কার্যত কোনও প্রতিরোধই গড়তে পারেনি কিউয়িরা।

এমন অবস্থায় দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে দ্রাবিড়কে প্রশংসায় ভাসিয়ে দিলেন বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। জাতীয় দলে একসময় সতীর্থ ছিলেন। বোর্ড সভাপতি হিসেবে মসনদে আসীন হওয়ার পরে সৌরভ বন্ধু দ্রাবিড়কে কোচ করে আনতে উদ্যোগী হয়েছেন।

নভেম্বরে টি২০ বিশ্বকাপের পরে টিম ইন্ডিয়ার কোচিংয়ে মেয়াদ শেষ হয় রবি শাস্ত্রীর। তারপরেই বোর্ডের তরফে অনেক বুঝিয়ে দায়িত্বে আনা হয় টিম ইন্ডিয়ার বরাবরের মিস্টার ডিপেন্ডবলকে।

কোচ হিসেবে দ্রাবিড় কতটা মহৎ তা জানাতে গিয়ে সৌরভ কানপুরে কিছুদিন আগে প্ৰথম টেস্টের একটি ঘটনা সামনে এনেছেন। নিউজ-১৮’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সৌরভ জানিয়েছেন, “দ্রাবিড়ের সাফল্যের জন্য শুভকামনা রইল।

শুনেছি, কানপুরে অনুশীলনের পরে সমস্ত ক্রিকেটীয় সরঞ্জাম, উইকেট, বল নিজে বয়ে নিয়ে যায় ড্রেসিংরুমে। দ্রাবিড়ের মত একজন ব্যক্তি এমন কাজ করছেন- ক্যামেরাম্যান এবং ফটোগ্রাফারদের কাছে এমন ঘটনা নিশ্চয় অভিনব। তবে ও কিন্তু এমন-ই।”

সৌরভ আরও জানিয়েছেন, টেস্টের নেতা বিরাট কোহলি, সীমিত ওভারের ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা এবং কোচ দ্রাবিড়ের পাশে সবসময় থাকবে বিসিসিআই। “সমস্ত রকমভাবে দ্রাবিড়, বিরাট, রোহিতকে সাহায্য করবে বিসিসিআই।”

দীর্ঘদিন জাতীয় দলের জার্সিতে একসঙ্গে খেলেছেন দ্রাবিড় এবং সৌরভ। টিম ইন্ডিয়ার লিডারশিপ গ্রুপও সামলেছেন দুই মহাতারকা। সৌরভ অধিনায়ক থাকার সময় রাহুল দ্রাবিড় ছিলেন জাতীয় দলের সহ অধিনায়ক।

এখন ভূমিকা বদলে গিয়েছে। ২০০৫-এ সৌরভকে সরিয়ে দেওয়ার পরে টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন করা হয়েছিল দ্রাবিড়কে। গ্রেগ চ্যাপেল জমানায়। একজন বোর্ডের শীর্ষপদে।

অন্যজন আবার টিম ইন্ডিয়ার হেড স্যার। দু বছরের মেয়াদে জাতীয় দলে কোচ করে আনা হয়েছে দ্রাবিড়কে। ২০২৩-এর বিশ্বকাপ পর্যন্ত হেড কোচের দায়িত্ব পালন করবেন দ্রাবিড়। তারপরে পারফরম্যান্স রিভিউ করে কোচিংয়ের মেয়াদ বাড়ানো হতে পারে।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *