করোনাকালে একদিকে যেমন গোটা বিশ্বের আর্থিক গতিবিধি থমকে ছিল, তখন আরেকদিকে ভারতের রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রি’রর চেয়ারম্যান মুকেশ আম্বানি মার্চ মাসে লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে প্রতি ঘণ্টায় ৯০ কোটি টাকা ইনকাম করেছেন। ‘হুরুন ইন্ডিয়া রিচ’ লিস্টে লাগাতার নয় বছর ধরে তিনিই শীর্ষ স্থান দখল করে রেখেছেন।

রিপোর্ট অনুযায়ী, মুকেশ আম্বানির মোট আয় ৬,৫৮,৪০০ কোটি টাকা। গত নয় বছরে আম্বানির ব্যাক্তিগত সম্পত্তি ২,৭৭,৭০০ কোটি টাকা বেড়েছে। মুকেশ আম্বানি এশিয়ার সবথেকে ধনী ব্যাক্তি আর গোটা বিশ্বের চতুর্থ সবথেকে ধনী ব্যাক্তির খেতাব অর্জন করেছেন। গত এক বছরে ওনার মোট সম্পত্তি ৭৩ শতাংশ বেড়েছে। এর সাথে শীর্ষ পাঁচ ধন কুবেরে জায়গা করে নেওয়া আম্বানি একমাত্র ভারতীয় হিসেবে উঠে এসেছে। হুরুন ইন্ডিয়া রিচ লিস্টে তাঁদের নাম যুক্ত আছে, যাদের সম্পত্তি ৩১ আগস্ট ২০২০ পর্যন্ত ১ হাজার কোটি অথবা তাঁর বেশি ছিল। এই তালিকায় ৮২৮ জন ভারতীয় স্থান পেয়েছে।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে লন্ডনের বাসিন্দা হিন্দুজা ব্রাদার্স আছে। হিন্দুজা ব্রাদার্সদের কাছে মোট ১ লক্ষ ৪৩ হাজার ৭০০ কোটি টাকার সম্পত্তি আছে। তৃতীয় স্থানে এইচসিএল এর সংস্থাপক শিব নাডর আছে, ওনার কাছে মোট ১ লক্ষ ৪১ হাজার ৭০০ কোটি টাকার সম্পত্তি আছে। এই তালিকায় চতুর্থ স্থানে আছেন গৌতম আদানি। উইপ্রো এর আজিম প্রেমজী এই তালিকায় পঞ্চম স্থানে আছেন।

অ্যাভিনিউ সুপারমার্টস এর সংস্থাপক রাধাকিশন দমানি প্রথমবার এই তালিকায় দেশের শীর্ষ ১০ ধন কুবেরদের মধ্যে জায়গা বানিয়ে নিয়েছেন। এই তালিকায় তিনি সপ্তম স্থানে আছে। এছাড়াও টপ ১০ এ সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া এর সাইরাস পুনাওয়ালা, কোটাক মহিন্দ্রা ব্যাঙ্কের উদয় কোটক, সান ফার্মা এর দিলীপ সাংভি আর শাপুরজি পলোনজি গ্রুপের শাপুরজি পলোনজি মিস্ত্রী আছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.