শার্দুল ঠাকুরের অগ্নিঝরা বোলিং ও অধিনায়ক সাঞ্জু স্যামসনের ৩ ছক্কায় নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয় টিম ইন্ডিয়ার

নিউজিল্যান্ড ‘এ’ দল বর্তমানে ভারত সফরে রয়েছে। বর্তমানে ভারত ‘এ’ এবং নিউজিল্যান্ড ‘এ’ দলের ​​মধ্যে একটি তিন ম্যাচের বেসরকারি ওডিআই সিরিজ খেলা হচ্ছে।

একই সিরিজের প্রথম ম্যাচে স্বাগতিক ভারত ‘এ’ সহজ জয় পেয়েছে। সঞ্জু স্যামসনের নেতৃত্বাধীন দল নিউজিল্যান্ড ‘এ’-কে ৭ উইকেটে পরাজিত করেছে।

এই ম্যাচে শার্দুল ঠাকুরের বোলিং যখন চমকপ্রদ দেখাচ্ছিল তখন রুতুরাজ গায়কোয়াড়, রজত পতিদার এবং সঞ্জু স্যামসনের ব্যাটিং-ও প্রমাণ করেছেন। এই ম্যাচে ভারত ‘এ’ দলের অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন টস জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেন।

এমন অবস্থায় নিউজিল্যান্ড ‘এ’ দল প্রথমে ব্যাট করতে নামে। প্রথমে ব্যাট করে ৪০.২ ওভারে ১৬৭ রানে গুটিয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের ‘এ’দল। মাইকেল রিপন করেন ৬১ রান, জো ওয়াকার করেন ৩৬ রান।

অধিনায়ক রবার্ট ও’ডোনেলের সংগ্রহে ছিল ২২ রান। এ ছাড়া আর কোনও কিউয়ি ব্যাটার ১০ রানের বেশি করতে পারেননি। এ কারণেই দলটি তাড়াতাড়ি মাত্র ১৬৭ রানের মধ্যেই অলআউট হয়ে যায়।

ভারতের হয়ে শার্দুল ঠাকুর নেন চারটি উইকেট। কুলদীপ সেন নেন ৩টি উইকেট। কুলদীপ যাদব শিকার করেন ১টি উইকেট। একই সময়ে, ভারত ‘এ’ দল ১৬৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নামে।

মাত্র ৩১.৫ ওভারেই ১৬৮ রানের লক্ষ্য অর্জন করে সঞ্জু স্যামসনের দল। রুতুরাজ গায়কোয়াড় ৫৪ বলে ৪১ রান করেন, এছাড়াও রজত পতিদার ৪১ বলে ৪৫ রান করেন।

অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন ২৯ রানে অপরাজিত থাকেন। রাহুল ত্রিপাঠীর ব্যাট থেকে আসে ৩১ রান। পৃথ্বী শ করেছেন ১৭ রান। ফলে সাত উইকেটে জয় নিশ্চিত করে ভারতের ‘এ’ দল।

সাম্প্রতিক দলীপ ট্রফিতে ভালো ব্যাট করার পর, শ এই সিরিজেও ব্যাটিং করবে বলে আশা করা হয়েছিল, কিন্তু তিনি প্রথম সুযোগে একটি ছোট স্কোরের সামনে ব্যর্থ হন এবং মাত্র ১৭ রান করেন তিনি।

একই সময়ে, ঋতুরাজ গায়কোড়, যিনি টিম ইন্ডিয়ার সঙ্গে খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন সেটা কাজে লাগান তিনি। অবশ্যই এদিন ভাল ব্যাটিং করেছেন। গায়কোয়াড় তাঁর ভালো ফর্ম অব্যাহত রাখেন এবং ৪১ রানের ইনিংস খেলেন।

শেষ পর্যন্ত অধিনায়ক সঞ্জু স্যামসন ও রজত পতিদারের জুটি ৬৯ রান যোগ করে। এরফলে দলকে তারা জয়ের পথে নিয়ে যান। এই বছর, মধ্যপ্রদেশের ব্যাটসম্যান পতিদার, যিনি প্রথম শ্রেণি

এবং টি-টোয়েন্টিতে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেছিলেন, ওয়ানডে ফর্ম্যাটেও তার গতি অব্যাহত রেখেছিলেন এবং দ্রুত গতিতে ৪৫ ​​রান করেছেন। একই সময়ে,

স্যামসনও কোন ঝামেলা ছাড়াই ২৯ রানের একটি অপরাজিত ইনিংস খেলেন, যেখানে তিনি ৩টি দুর্দান্ত ছক্কা মেরে ৩২ ওভারেই জয় নিশ্চিত করেছিল।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.