২০১১ বিশ্বকাপজয়ী দলের ৪ ভারতীয় খেলোয়াড় যারা এখনও অবসর ঘোষণা করেননি,দেখে নিন কে সেই ৪ তারকা

২০১১ আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ (আনুষ্ঠানিকভাবে আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ২০১১) হচ্ছে আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের ১০ম প্রতিযোগিতা। ভারত, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশে এই বিশ্বকাপ আয়োজিত হয়েছিল। শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে ভারত এই বিশ্বকাপে জয়ী হয়।

ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে ২০১১ সালের বিশ্বকাপ জয় সবচেয়ে স্মরণীয় মুহূর্তগুলির মধ্যে একটি। ২৮ বছর পর মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বে ভারত দ্বিতীয় বার ওয়ানডে বিশ্বকাপের শিরোপা জয়লাভ করে।

পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে ভারতীয় খেলোয়াড়রা দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন। বিশেষ করে যুবরাজ সিংয়ের অলরাউন্ড পারফরম্যান্স চোখে পড়ার মতো। এছাড়া ফাইনালে গৌতম গম্ভীর ও মহেন্দ্র সিং ধোনির মহাকাব্যিক ইনিংস দুটি কখনো ভোলার নয়।

আশ্চর্যজনকভাবে, বিশ্বকাপ জয়ের পর ভারতীয় দলের সিনিয়র খেলোয়াড়রা নিয়মিতভাবে খেলা চালিয়ে যেতে পারেননি, তাই অনেকেই ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে দেন।

আবার কিছু রয়েছেন যারা এখনও জাতীয় দলে ফেরার অপেক্ষায় দিন গুনছেন, কিন্তু ফেরার আর কোনো সম্ভাবনা নেই। সম্প্রতি হরভজন সিংহও এই কারণে অবসর ঘোষণা করেছেন। তবে এখনও যে ৪ জন খেলোয়াড় সক্রিয় রয়েছেন, এবার তাদের সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক:

১) এস শ্রীশান্ত:

এস শ্রীশান্ত একমাত্র ভারতীয় ফাস্ট বোলার যিনি ২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন। শ্রীশান্ত ২০১১ সালের বিশ্বকাপে কেবল দুটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন।

এরপর ২০১৩ সালে আইপিএলে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগে জড়িত হয়ে তিনি আজীবন ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হন। কয়েক বছর আগে তিনি হাইকোর্ট থেকে ক্লিনচিট পেলেও তার এখন জাতীয় দলে ফেরার রাস্তা প্রায় বন্ধ।

২) পীযূষ চাওলা:

ভারতের দলের লেগ স্পিনার পীযূষ চাওলা ক্যারিয়ারের শুরুতে প্রতিভা দেখালেও কিন্তু বেশিদিন মেলে ধরতে পারেনি। ২০১১ বিশ্বকাপে তিনি কয়েকটি ম্যাচ খেলেছিলেন। কিন্তু এরপর জাতীয় দলের হয়ে আর কখনও খেলার সুযোগ পাননি।

পীযূষ চাওলা ভারতের হয়ে ৩টি টেস্ট, ২৫টি ওয়ানডে ও ৭টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। যথাক্রমে টেস্টে ৭ উইকেট, ওয়ানডেতে ৩২ উইকেট এবং টি-টোয়েন্টিতে ৪টি উইকেট নিয়েছেন।

৩) রবীচন্দ্রন অশ্বিন:

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের পরেই ২০১১ সালের বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ হয়েছিল রবীচন্দ্রন অশ্বিনের। এর আগে তিনি আইপিএলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে নির্বাচকদের নজর কেড়েছিলেন।

বর্তমানে তিনি টেস্ট ক্রিকেটে একজন দুর্দান্ত অলরাউন্ডার হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। এমনকি বহুদিন পর সীমিত ওভারের ক্রিকেটে ফিরেছেন তিনি।

৪ ) বিরাট কোহলি:

বর্তমান টেস্ট দলের ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলিও ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন। এই তরুণ ক্রিকেটার বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বিশেষ কৃতিত্ব অর্জন করেন। এই টুর্নামেন্টে তিনি ৯ ম্যাচে ৩৫.২৫ গড়ে ২৮২ রান করেছিলেন।

যেখানে তিনি একটি সেঞ্চুরি ও দুটি হাফসেঞ্চুরি করেন। যদিও এই মুহূর্তে বিরাটের অবসরের কোনো পরিকল্পনা নেই। এখনও যেভাবে পারফর্ম ও ফিটনেস ধরে রেখেছেন কমপক্ষে তিনি আরও ৫-৬ বছর খেলা চালিয়ে যাবেন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *